৪ টি গ্রহ রাশি পরিবর্তন করছে এবং এর প্রভাব থাকবে ৩য় এবং ৪র্থ সপ্তাহ পর্যন্ত যা সমস্ত রাশিচক্রের উপর প্রভাব ফেলবে। ৪ রাশির জাতকের জন্য অত্যন্ত অশুভ সময় শুরু হতে পারে আবার ৮ রাশির জাতকের জন্য অত্যন্ত শুভ সময় শুরু হতে পারে।

জ্যোতিষশাস্ত্রের দৃষ্টিকোণ থেকে, জুনের ৩য় এবং ৪র্থ সপ্তাহটি সমস্ত রাশির উপর বিশেষ প্রভাব ফেলবে। ১৫ থেকে ২৫ জুন পর্যন্ত ৪ টি গ্রহের পথ পরিবর্তন হবে। যা সমস্ত রাশিচক্রের উপর প্রভাব ফেলবে। জ্যোতিষশাস্ত্রের মতে, এই ১০ দিনের মধ্যে গ্রহদের গতিবিধিতে পরিবর্তনের ফলে ৮ রাশির জন্য অত্যন্ত শুভ সময় শুরু হতে পারে। এগুলি ছাড়াও ৪ টি রাশি অসুবিধা বাড়তে পারে।

২১ জুন এর সূর্যগ্রহণ শুরু হচ্ছে ভারতীয় সময় সকাল ৯ টা  ১৬ মিনিট এবং বাংলাদেশ সময় ৯ টা ৪৬ মিনিট থেকে এবং এই গ্রহণ শেষ হবে ভারতীয় সময় বিকেল ৩ টা ৪ মিনিট এবং বাংলাদেশ সময় ৩ টা ৩৪ মিনিটে। এই গ্রহণ এর স্থায়ীত্বকাল ৫ ঘন্টা ৪৮ মিনিট। ২০ জুন ভারতীয় সময় রাত্রি ১০.২০বা বাংলাদেশ সময় ১০.৫০ মিনিট হতে শুরু হবে বিভিন্ন রাশির উপর এই গ্রহণের প্রভাব। যেহেতু এই গ্রহণ ভারত বর্ষে দৃশ্যমান তাই নিতে হবে আলাদা সতর্কতা।

জ্যোতিষশাস্ত্র মতে যে, ১৫ জুন, সূর্য মিথুন রাশিতে প্রবেশ করবে। এর পরে, ২ দিন পরে অর্থাৎ ১৮ তারিখ মঙ্গল গ্রহের রাশিচক্র পরিবর্তন হবে এবং এই দিন, বুধও মিথুন রাশিতে ফিরে যাবে। তারপরে ২০ জুন, বুধও স্থির হবে। শুক্র জুনের শেষ সপ্তাহে নিজস্ব রাশিতে থাকবে। ২২ জুন মঙ্গলবার, শুক্র বৃষ রাশিতে প্রবেশ করবে। এমন পরিস্থিতিতে এই গ্রহের অশুভ ফল কমে যায়।

এই গ্রহগুলির প্রভাব-

মেষ, বৃষ, মিথুন, সিংহ, কন্যা, তুলা, মকর এবং কুম্ভ রাশির জন্য এটি ভাল সময়। জুনে ৪ টি গ্রহের চলাচলের রাশির পরিবর্তনের কারণে এই ৮ রাশির অর্থ বৃদ্ধি এবং ব্যবসায় সুবিধা পেতে পারেন। এগুলি ছাড়াও কর্কট, বৃশ্চিক, ধনু এবং মীন এই চার রাশির লোকদের চাকরী ও ব্যবসায় সতর্ক থাকতে হবে। কঠোর পরিশ্রম হবে এবং কোনও সুবিধাও পাবেন না। মানসিক চাপ, ক্ষতি এবং বিতর্ক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

খারাপ প্রভাব এড়াতে কী করবেন-

জ্যোতিষ শাস্ত্রের মতে, যে গ্রহের অশুভ প্রভাব এড়াতে বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে উপবাস, অনুদান, জপ এবং গ্রহ সম্পর্কিত জিনিসগুলির উপাসনা। যেভাবে করবেন গ্রহ দোষের প্রতিকারঃ

১. গঙ্গার জলে টাটকা দুধ মিশিয়ে শিবলিঙ্গে অর্পণ করলে প্রতিটি গ্রহের অশুভ প্রভাব কমে যায়।
২. খুব সকালে ঘুম থেকে উঠে সূর্যমন্ত্র জপ করে জল অর্পণ করতে পারেন।
৩. এর পরে, দুধ এবং জল মিশিয়ে বট বা অশ্বত্থ গাছে দিতে পারেন।
৪. চাকরি, ব্যবসা, স্বাস্থ্য ও দাম্পত্য জীবনের সমস্যাগুলি কাটিয়ে উঠতে মহামৃত্যুঞ্জয় মন্ত্রটি উচ্চারণ করতে পারেন।

সবসময় ঈশ্বরের স্মরণাপন্ন থাকবেন। মনে রাখবেন যে প্রদীপ ঈশ্বরের চরণে জ্বলে তার কোন ক্ষতি হয় না!