দীপাবলি যেমন আলোর উৎসব তেমনই আনন্দেরও উৎসব। এই সময় কিছু কাজ করা থেকে বিরত থাকা উচিত। শাস্ত্রমতেই এমনটা বলা হয়েছে। এই ৭ কাজ জেনে নিন

দেরি করে ঘুম থেকে ওঠা: শাস্ত্রমতে দীপাবলির সপ্তাহে দেরি করে ঘুম থেকে ওঠা অনুচিত। সূর্যোদয়ের আগে শয্যাত্যাগ করা উচিত। তা না করলে মা লক্ষ্মীর কৃপা থেকে বঞ্চিত হতে হয়।

বড়দের অসম্মান করা: শাস্ত্রে গুরুজনদের সর্বদাই সম্মান করতে বলা হয়েছে। কিন্তু দীপাবলির আগে-পরে বড়দের প্রতি অতিরিক্ত সম্মান প্রদর্শন করা প্রয়োজন। না হলে দেবরোষের শিকার হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

ঘরদোর অপরিষ্কার রাখা: শাস্ত্র মতে, মা লক্ষ্মী এমন একজন দেবী যিনি অপরিচ্ছন্নতা কোনও মতেই সহ্য করতে পারেন না। কাজেই যদি লক্ষ্মীর কৃপালাভ করতে হয়, তা হলে দীপাবলির সময় ঘরের পরিচ্ছন্নতার ব্যাপারে বিশেষ মনোযোগী হোন।

মেজাজ খারাপ করা: কোনও কারণে আপনি মেজাজ খারাপ করলে বা মাথা গরম করলে তার কুপ্রভাব পড়ে আপনার আশপাশে সকলের উপরে। ফলে তাঁদের আনন্দেও ভাটা প়ড়ে। এই কারণে দেবতারা আপনার উপরে রুষ্ট হন। কাজেই দীপাবলি পর্বে মেজাজ ঠান্ডা রাখা অত্যন্ত জরুরি।

সন্ধ্যায় ঘুমনো: আপনি যদি অসুস্থ হন কিংবা গর্ভবতী হন তা হলে আলাদা, নতুবা দীপাবলির আগে-পরে কয়েকদিন সন্ধ্যাবেলা না ঘুমনোই ভাল। সন্ধ্যাবেলা ঘুমোলে তার ফলে দারিদ্র্য ও দুর্ভাগ্য দেখা দেয় বলে মনে করছে শাস্ত্র।

ঝগড়া বা বিবাদ: দীপাবলির সময়ে অন্যদের সঙ্গে ঝগড়া বা বিবাদে জড়িয়ে পড়া একেবারেই অনুচিত। নিজেকে খুশি রাখার পাশাপাশি অন্যদের আনন্দকে সুনিশ্চিত করাও আপনার কর্তব্য, এমনটাই শাস্ত্রীয় উপদেশ।

নেশা করা: দীপাবলির সময়ে মদ্যপান কিংবা ধূমপান করার কাজ দেবী লক্ষ্মীকে রুষ্ট করে। তাতে আপনার আর্থিক ক্ষতির সম্ভাবনা দেখা দেয়। কাজেই দীপাবলির সপ্তাহে কোনও রকম নেশা করা থেকে বিরত থাকুন।

সোর্সঃ সংগৃহিত