সৌভাগ্য-সমৃদ্ধি ফেরাতে দিওয়ালিতে কতগুলি প্রদীপে বাড়ি সাজাতে হবেঃ

মনের অলক্ষ্মীকে দূর করে আলোর উৎসবে মনের উজ্জ্বলতা বাড়িয়ে তোলার উপলক্ষ্যে দীপাবলি। গোটা বাংলা যখন দিপান্বিতা অমাবস্যা উপলক্ষ্যে কালীপুজো নিয়ে ব্যস্ত, তখন দেশের বাকি অংশে লক্ষ্মীর আরাধনা করা হয়। মাতৃ আরাধনার এই মরশুমে লক্ষ্মীলাভ করতে, সৌভাগ্য-সমৃদ্ধি ফিরে পেতে কয়েকটি বিশেষ রীতি রয়েছে প্রদীপ সাজানোকে কেন্দ্র করে।

দীপান্বিতা কালীপুজোয় ক’টি প্রদীপ প্রয়োজনঃ

কালীপুজোর রাতে, বা এই আলোর উৎসব উপলক্ষ্যে ২৮ টি বা ১০৮ টি প্রদীপ দানের নিয়ম প্রচলিত। শাস্ত্র মতে, এই নির্দিষ্ট সংখ্যার প্রদীপ দিয়ে বাড়ি সাজালেই দীপাবলির মরশুমে দূর হয় অলক্ষ্মী ও বাড়িতে বিরাজ করে সমৃদ্ধি-সৌভাগ্য।
প্রদীপ দানের ফলাফলঃ দীপান্বিতা অমাবস্যায় ২৮ টি বা ১০৮ টি প্রদীপ দিয়ে বাড়ি সাজালে বাড়ি থেকে বিতাড়িত হয় শোক, দুঃখ, রোগ। শুধু তাই নয়। নির্দিষ্ট সংখ্যক প্রদীপ দিয়ে বাড়ি সাজালে দারিদ্রতা নাশ হয়, শক্র বিনাশ হয়, ফেরে গৃহশান্তি।
প্রদীপ দানের রীতিঃ প্রদীপ দেওয়ার সময় কয়েকটি রীতি জেনে রাখা প্রয়োজন। যেমন প্রদীপ সরষের তেলে জ্বালানো উচিত। পাশাপাশি, একটি প্রদীপ থেকে অন্য প্রদীপে আলো জ্বালানো উচিত নয়। প্রদীপের মুখ কোনদিকে থাকবে? প্রদীপের মুখ এদিন অবশ্যই থাকবে উত্তরমুখী। শুধু তাই নয় , বাড়ির ৫ টি জায়গায় অবশ্যই রাখতে হবে প্রদীপ। বসার ঘর, পুজোর ঘর, বাড়ির যেকোনও গাছের নিচে দিতে হবে প্রদীপ, বাড়ির সদর দরজা, বাড়ির যেকোনও কোনে প্রদীপ দিয়ে সাজাতে হবে।

দীপাবলীতে লক্ষ্মী-গণেশের পুজোতে পদ্মফুলের মাহাত্ম্যঃ

দীপাবলীতে ঘরে ঘরে অলক্ষ্মীকে বিদায় জানাতে আরাধনা করা হয় লক্ষ্মী গণেশের৷ সেই পুজোতে পদ্মফুল ব্যবহার আবশ্যিক৷ এই ফুলটিকে ছাড়া দিওয়ালি পূজা কার্যত অসম্পন্ন৷ হিন্দু পুরাণ অনুযায়ী, এই বিষয়টি প্রচলিত৷ কিন্তু কেন প্রচলিত জানেন? ভগবান ব্রহ্মার সিংহাসনটি পদ্মফুল দিয়ে সাজানো৷ কথিত আছে, ধ্যানে বসার সময়ে এই সিংহাসনটিকে সাজানোর জন্য তিনি পদ্মফুলকেই বেছে নিয়েছিলেন৷ কথিত আছে, এই পদ্মফুল ভগবান বিষ্ণুর নাভি থেকে সৃষ্টি হয়েছে৷

এছাড়াও পদ্মফুলকে ঘিরে রয়েছে আরও অজানা বেশ কিছু সত্য ঘটনা৷ কাদামাটিতে এই পদ্মফুল জন্মায়৷ কিন্তু সেই নোংরা কাদামাটি কিন্তু পদ্মফুলকে স্পর্শ করতে পারেনা৷ এই ফুলটির সুবাসে বোঝাই দায় যে এই ফুলটি কোথায় জন্মায়৷ আপনার চারপাশে থাকা নেগেটিভ এনার্জি দূর হয়ে যায় এই ফুলের গুণে৷ আপনার চারপাশে থাকা নেগেটিভ মানুষ এবং নেগেটিভ কোনও শক্তি আপনার কোনও ক্ষতি করতে পারবেনা৷

লক্ষ্মী গণেশের পুজোয় পদ্মফুলের মাহাত্ম তো রইছেই৷ একইসঙ্গে বৌদ্ধধর্মেও এই ফুলটিকে ভীষণই পবিত্র হিসেবে মানা হয়৷ ভগবত গীতাতেও পদ্মফুলের গুনাগুণের কথা উল্লেখ রয়েছে৷ এটি সমস্তরকম লোভ, ঘৃণা, হিংসা, রাগ আপনার শরীর থেকে দূর করবে৷ কথিত আছে, পদ্মফুলেই জন্মেছিলেন নাকি লক্ষ্মী ঠাকুরও৷

সোর্সঃ সংগৃহিত